আশ্বাসের পরও চাকরি মেলেনি রবিউলের স্ত্রীর - প্রথম আলো

গুলশানে হোলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলায় নিহত পুলিশ কর্মকর্তা রবিউল করিমের দুই সন্তানকে কোলে নিয়ে স্ত্রী উম্মে সালমা ও মা করিমন্নেছা। ছবিটি বৃহস্পতিবার দুপুরে মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার কাটিগ্রামের বাড়ি থেকে তোলা। ছবি: আব্দুল মোমিনঢাকার গুলশানে হোলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলায় নিহত ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা ...

চাকরি চান নিহত রবিউলের স্ত্রী - জাগো নিউজ (satire) (press release) (blog)

গুলশান হামলায় নিহত ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা বিভাগের সহকারি কমিশনার রবিউল ইসলামের অনুপস্থিতি সর্বক্ষণই টের পাচ্ছে তার পরিবার। পরিবারের একমাত্র কর্মক্ষম মানুষটির চলে যাওয়ার পর সরকার ও পুলিশ বাহিনী থেকে সহানুভূতি মিললেও এখনও পরিবারটির কোনো সদস্যর মেলেনি চাকরি। পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় জঙ্গি ...

হলি আর্টিজানে নিহত এসি রবিউলের পরিবার দুশ্চিন্তায় - দৈনিক ইত্তেফাক

মোহাম্মদ রবিউল করিমের বাবা আব্দুল মালেক একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থায় চাকরিরত অবস্থায় ২০০৬ সালে ৪৫ বছর বয়সে মারা যান। বাবার অকাল মৃত্যুতে গোটা পরিবার পড়ে যায় বিপাকে। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় অনার্স ও মাস্টার্স করে ৩০তম বিসিএসের মাধ্যমে পুলিশ বিভাগে যোগ দেন। রবিউলের চাকরি হওয়ার পর পরিবারটি ...

এসি রবিউলের সন্তানদের অনিশ্চিত ভবিষ্যৎ - Bangla Tribune

হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলায় নিহত এসি রবিউল ও তার পরিবারহলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলায় নিহত এসি রবিউলের ইচ্ছা ছিল কন্যাসন্তানের বাবা হওয়ার। ভুলক্রমে আল্টাসনোগ্রাম থেকে পুত্রসন্তান হবে বলেই জানতেন তিনি ও তার পরিবার। তাই তাদের ঘরে আবার ছেলে জন্ম নেবে বলেই জানতেন রবিউল। তবে তার মেয়েই হয়েছে। কিন্তু নিজের ...

রবিউলের স্বপ্ন পূরণে সহযোগিতা চান স্ত্রী - বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর.কম

মানিকগঞ্জে নিজের এলাকায় প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য একটি বিদ্যালয় গড়ে তুলেছিলেন পুলিশ কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম; এটি আরও বড় করার পাশাপাশি একটি বৃদ্ধাশ্রম গড়ে তোলার স্বপ্নও ছিল তার। কিন্তু এক বছর আগে গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলায় রবিউলের মৃত্যু তার স্বপ্নপূরণের পথও রুদ্ধ করে দেয়। স্বামীর সেই স্বপ্ন পূরণে ...

বাবার ছবিতে চুমু খায় ১১ মাসের অবুঝ মেয়ে - বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা: তিনি এখন নেই। তবে নবীনগরের আমবাগানের এই বাসায় মা, স্ত্রী, সন্তানরা থাকেন। বাসার ড্রইং রুমে ঢুকলেই আর বুঝতে বাকি থাকে না, এখানে ডিবি পুলিশের রবিউল করিমের পরিবার বাস করে। চারিদেকে বিভিন্ন স্মারক, পুলিশের বই, সরকারি চাকরির নিয়মাবলী, আরো কতো কি! জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০তম ব্যাচের ছাত্র ছিলেন রবিউল।

হলি আর্টিজান: ছবি দেখেই 'বাবা' ডাকে রবিউলের মেয়ে - Channel i

ঢাকার কাছের জেলা মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার শান্ত কাটিগ্রামের কোলে ঘুমাচ্ছেন রবিউল করিম, সাদা টাইলসে বাঁধানো মাটির বিছানায়। দেশের জন্য কাজ করবেন বলে প্রবাস থেকে গ্রামে ফিরেছিলেন তিনি। নিজের গ্রামের সব মানুষকে পরিবারের মতো ভালোবাসতেন মানুষটি। তাদের জন্য স্বপ্ন লালন করা বুকটি স্প্লিন্টারে ঝাঁঝরা হওয়ার আগ পর্যন্ত তার ...