ভিনদেশি দাদার হাত ধরে কেঁদে ফেললেন আসমা - আনন্দবাজার

না আছে দেশের সম্পর্ক, না আছে ধর্মের। পরিবারটিকে তিনি চিনেছেনই মাত্র কয়েক ঘণ্টা। তবু স্বামী-পুত্র হারা আসমার সঙ্গে তিনি রইলেন শেষ পর্যন্ত। যতক্ষণ না ছেলের কফিন বন্দি দেহ নিয়ে মা টপকে যাচ্ছেন কাঁটাতারের বেড়া। বাংলাদেশের এক মুসলিম পরিবারের সঙ্গে এ ভাবেই সম্পর্ক গড়ে ফেললেন ভারতের রামেশ্বর রায়। বছর আটত্রিশের ...

আসমাকে সান্ত্বনা দেয়ার ভাষা কারও নেই - মানবজমিন

অনেক আশা নিয়ে বাংলাদেশের গাজীপুরের বাসিন্দা রফিক ও আসমা মণ্ডল তাদের পুত্র আসাদকে নিয়ে চিকিৎসার জন্য কলকাতায় এসেছিলেন। পুত্রকে সেরা চিকিৎসা দিয়েও বাঁচাতে পারেন নি। কিন্তু দেশে ফিরে যাবার পথে সীমান্তেই মৃত্যু হয়েছে রফিকেরও। এই হৃদয়বিদারক ঘটনাটি ঘটেছে গত সোমবার বিকাল নাগাদ। আসমার কান্নায় বনগাঁ সীমান্তের মুখর ...

ছেলের লাশ নিয়ে ফেরার পথে বাবার মৃত্যু - সময়নিউজ.টিভি

কলকাতায় অসুস্থ ছেলের চিকিৎসা করাতে গিয়ে লাশ নিয়ে ফেরার পথে মৃত্যু হয়েছে বাবার। ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের পশ্চিম বনগাঁয়ে এ ঘটনা ঘটে। স্বামী মুহম্মদ রফিকের লাশ নিয়ে আসমা বিবি এখন ভারত-বাংলাদেশের জিরোপয়েন্টে অবস্থান করছেন। দেশে ফেরার প্রতীক্ষায় প্রহর গুনছেন। মাত্র ১৫ বছর বয়সে ক্যান্সারের কারণে মৃত্যু হয় তাঁর ...

ছেলের লাশ নিয়ে ফেরার পথে বাবার মৃত্যু, সীমান্তে প্রহর গুনছেন মা - The Daily Star Bangla

কলকাতায় চিকিৎসা করাতে এসে অসুস্থ ছেলের মৃত্যু হওয়ায় কফিন বন্দি দেহ নিয়ে ফেরার পথে অসুস্থ হয়ে বাবারও মৃত্যু হল। হৃদয়বিদারক এই ঘটনা ঘটেছে বাংলাদেশ-ভারতের সীমান্তবর্তী পশ্চিমবঙ্গের প্রান্তিক এলাকা বনগাঁয়। গাজীপুরের বাসিন্দা ওই পরিবার। মৃত বাবার নাম রফিক মণ্ডল এবং পুত্রের নাম আসাদ মণ্ডল। পুত্র এবং স্বামী হারিয়ে ...

সীমান্তে নো ম্যানস ল্যান্ডে ছেলের কফিন-বন্দি দেহের সামনে মত্যু বাবার - Kolkata24x7

কার্তিক সাহা , বনগাঁ: অদৃষ্টের কি পরিহাস। ঘড়িতে তখন দুপুর দুটো। মাথার ওপর টনটনে রোদ। সবে মাত্র একমাত্র ছেলের কফিন বন্দি মৃত দেহ টা এসে পৌঁছেছে দু'দেশের সীমান্তের মূল ফটকে। সব কিছু প্রস্তুত। শুধুমাত্র হাই কমিশনার অফিস থেকে কাগজ পত্র আসার অপেক্ষা। তার পরেই হতভাগ্য বাবা মা একমাত্র ছেলেটার নিথর দেহটা নিয়ে পাড়ি দেবেন ...

ছেলের কফিন বন্দী লাশ আনতে গিয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন বাবাও! - somoyerkonthosor (press release)

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক: মরনব্যধি রোগ ক্যান্সারে আক্রান্ত ছেলে আসাদ মন্ডলের চিকিৎসা করাতে স্বামী রফিক মন্ডলকে সঙ্গে নিয়ে কলকাতায় গিয়েছিলেন গাজীপুরের আসমা বেগম। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস যাকে বলে। চিকিৎসাকালিন হঠাৎ মারা যান ছেলে আসাদ মন্ডল (১৫)। এরপর কফিন বন্দী ছেলের লাশ দেশে ফেরত নিতে গিয়ে স্বামীকেও হারালেন ...

ছেলে-স্বামীর কফিন নিয়ে চললেন আসমা - আনন্দবাজার

ক্যান্সারে মারা গিয়েছে একমাত্র সন্তান। পেট্রাপোল বন্দরে ছেলের কফিন আগলে বসেছিলেন বাবা। চোখের জল বাঁধ মানছে না। শরীর যেন ক্রমে নেতিয়ে পড়ছে। কোনও মতে উঠে যাচ্ছিলেন শৌচালয়ের দিকে। সেখানে আরও অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে হাসপাতালে নিয়ে গেলে মারা যান। আত্মীয়-স্বজন বলে তখন কেউ নেই আসমা বিবির পাশে। সদ্য সন্তানকে হারিয়ে ...