৫০০ রুপি থেকে ২ কোটি ৬০ লাখ! - প্রথম আলো

আইপিএলের নিলামে সিরাজের দাম এখন উঠল ২ কোটি ৬০ লাখ রুপি। ছবি: তেলেঙ্গানা টুডেক্রিকেট খেলে জীবনে প্রথম আয় তাঁর ৫০০ রুপি। ক্রিকেটই যে সেই ৫০০ রুপিকে ২ কোটি ৬০ লাখ বানিয়ে দেবে, সেটা কি ভেবেছিলেন মোহাম্মদ সিরাজ? হায়দরাবাদের এই নবীন ক্রিকেটারের ক্রিকেট জীবনের গল্পটা এমনই—রূপকথার মতোই। আলাদিনের আশ্চর্য প্রদীপের গল্প ...

দিনমজুরের ছেলে এখন ৩ কোটির ক্রিকেটার - কালের কন্ঠ

মহম্মদ সিরাজের পৃথিবীটা এক লহমায় বদলে গেল। কয়েক মিনিটের মধ্যেই হায়দরাবাদের ক্রিকেটারটি হয়ে গেলেন কোটিপতি। সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ২.৬ কোটি টাকার বিনিময়ে তাকে দলে নিয়েছে। কোটিপতি ক্রিকেটার টাইমমেশিন ছাড়াই ফিরে যাচ্ছেন সেই পুরনো দিনে। তার স্মৃতিতে ভিড় করে রয়েছে কত পুরনো ঘটনা। আইপিএলের নিলামে কোটিপতি হওয়ার ...

জেনে নিন, রূপকথার গল্গ নয় জিরো থেকে কোটিপতি হয়ে গেলেন মোহাম্মদ সিরাজ - স্বাধীনবাংলা২৪.কম

স্বাধীনবাংলা২৪.কম, স্পোর্টস ডেস্ক : রূপকথার গল্পের মতো কথা রাতারাতি কোটিপতি তেমনি তেলেঙ্গানা টুডেআইপিএলের নিলামে সিরাজের দাম এখন উঠল ২ কোটি ৬০ লাখ রুপি। ক্রিকেট খেলে তার জীবনে প্রথম আয় তাঁর ৫০০ রুপি। ক্রিকেটই যে সেই ৫০০ রুপিকে ২ কোটি ৬০ লাখ বানিয়ে দেবে, সেটা কি ভেবেছিলেন মোহাম্মদ সিরাজ? হায়দরাবাদের এই নবীন ...

আইপিএলের বদৌলতে অটোচালকের ছেলে এখন কোটিপতি - নয়া দিগন্ত

কোনো এক ক্লাবের হয়ে খেলে জীবনে প্রথম আয় করেছিলেন ৫০০ রুপি। সেই আয় এখন আড়াই কোটি রুপি ছাড়িয়েছে। ৫০০ থেকে আড়াই কোটি রুপির এই যাত্রা অসাধারণ এক অনুভূতির জন্ম দিয়েছে ভারতের মোহাম্মদ সিরাজের ভেতর। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) দশম আসরের নিলামে সোমবার সানরাইজার্স হায়দরাবাদ এই পেসারকে দলে ভিড়িয়েছেন ২.৬ ...

দিনমজুরের ছেলে সিরাজ এখন কোটিপতি - দৈনিক জনকন্ঠ

অনলাইন ডেস্ক॥ মহম্মদ সিরাজের পৃথিবীটা এক লহমায় বদলে গেল। কয়েক মিনিটের মধ্যেই হায়দরাবাদের ক্রিকেটারটি হয়ে গেলেন কোটিপতি। সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ২.৬ কোটি টাকার বিনিময়ে তাকে দলে নিয়েছে। কোটিপতি ক্রিকেটার টাইমমেশিন ছাড়াই ফিরে যাচ্ছেন সেই পুরনো দিনে। তার স্মৃতিতে ভিড় করে রয়েছে কত পুরনো ঘটনা। আইপিএলের নিলামে ...

আইপিএল: বাবা-মাকে একটা বাড়ি কিনে দিতে চান হায়দরাবাদের ২.৬ কোটি টাকার পেসার সিরাজ - ABP Ananda

হায়দরাবাদ: বাবা অটো চালাতেন। টাকাপয়সার অভাব কখনও বুঝতেই দেননি। ক্রিকেট স্পাইক দরকার হলে বাবা সেরা জিনিসটাই কিনে এনে দিতেন। অর্থাভাব তাঁর বা তাঁর দাদার ওপর কখনও পড়তেই দেননি বাবা। তাই আইপিএলে খেলে যে টাকা পাবেন, তা দিয়ে বাবা মহম্মদ ঘাউস ও মা শাবানা বেগমকে হায়দরাবাদের একটা ভালো এলাকায় একটা বাড়িতে কিনে দিতে চান ...